• Ad 850
  • Ad 850
  • Ad 850
  • Ad 850

সরে গেলেন রামিম, আরজুর যত অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিনিধি
প্রকাশ : মার্চ ২৭, ২০১৯ | সময় : ৩:৫৪ অপরাহ্ণ

ফেনীর ফুলগাজী উপজেলা নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদ থেকে সরে দাঁড়ালেন স্বতন্ত্র প্রার্থী মোহাম্মদ রামিম হোসেন। বুধবার শহরের একটি চাইনিজ রেস্টুরেন্টে সাংবাদিক সম্মেলনের মাধ্যমে তিনি দলীয় স্বার্থে সরে যাওয়ার কথা জানান। লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, দলীয় স্বার্থে আমি ফুলগাজী উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও বর্তমান চেয়ারম্যান আবদুল আলিমকে সমর্থন করে সরে দাঁড়ালাম।

এর আগে ৪র্থ দফায় উপজেলা নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পর ৪ মার্চ ফুলগাজী উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও বর্তমান চেয়ারম্যান আবদুল আলিম ও স্বতন্ত্র প্রার্থী মোহাম্মদ রামিম হোসেন মনোনয়নপত্র দাখিল করেন। ৬ মার্চ বাছাইকালে স্বতন্ত্রপ্রার্থী মোহাম্মদ রামিম হোসেনের মনোনয়নপত্র বাতিল করেন রিটানিং কর্মকর্তা। পরে তিনি পরে তিনি উচ্চ আদালতে রিট পিটিশন (৩২৭০/২০১৯) দাখিল করলে ১৯ মার্চ রামিম হোসেনের প্রার্থীতা বৈধ ঘেষণা করা হয়।

২৫ মার্চ উচ্চ আদালতের রায়ের পর রিটানিং কর্মকর্তা ও অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক পিকেএম এনামুল করিম আবদুল আলিমকে বিনাপ্রতিদ্ব›িদ্বতায় বিজয়ী ঘোষণা প্রত্যাহার করে নির্বাচন আয়োজনের গণবিজ্ঞপ্তি জারি করেন। পরে ২৭ মার্চ সাংবাদিক সম্মেলনের মাধ্যমে রামিম হোসেন নির্বাচন থেকেসরে দাঁড়ানোর ঘোষণা দেন।

এ সময় ফেনী পৌরসভার প্যানেল মেয়র আশ্রাফুল আলম গিটার, ফুলগাজী উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও বর্তমান চেয়ারম্যান আবদুল আলিম, ফেনী পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি আইনুল কবীর শামিমসহ দলীয় বিভিন্ন স্তরের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে ফেনী সদর উপজেলার ধর্মপুরে নির্বাচনী প্রধান কার্যালয়ে সাংবাদিক সম্মেলনের নানা অভিযোগ করে স্বতন্ত্র প্রার্থী এম আজহারুল হক আরজু। লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন- তফসিল ঘোষণার পর থেকে প্রতিদ্ব›িদ্ব প্রার্থী ও বর্তমান চেয়ারম্যান জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আবদুর রহমানের ছেলে সুমনের নেতৃত্বে তার সমর্থকরা সন্ত্রাসী কর্মকান্ড চালিয়ে যাচ্ছে। শহরের বিভিন্ন স্থানে প্রকাশ্যে ফেস্টুন ছিঁড়ে ফেলা হয়েছে। ৮টি মাইক ছিনতাই, ৪টি সিএনজি ভাংচুর ও প্রধান নির্বাচনী অফিসে গুলি করে তছনছ করা হয়েছে।তিনি আরো অভিযোগ করেন- আমার কর্মীবাহিনী, সিএনজি ও মাইক্রো ড্রাইভারদের উপর হামলা হয়েছে। সর্বশেষ ২৬ মার্চ মঙ্গলবার শহরতলীর রানিরহাটে গণসংযোগ করার সময় গাড়ী বহরে হামলা নারকীয় চালানো হলেও আমি প্রাণে বেঁচে যাই।

উল্লেখ্য, ৩১ মার্চ অনুষ্ঠিতব্য উপজেলা নির্বাচনে ফেনী সদর উপজেলায় ইবিএম’ন মাধ্যমে ভোট গহণ অনুষ্ঠিত হবে। এ উপজেলায় এর আগে বিনাপ্রতিদ্বনিদ্বতায় ভাইস চেয়ারম্যান ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়ে যান। চেয়ারম্যান পদে জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আবদুর রহমান বিকম (নৌকা) ও জেলা যুবলীগের সাবেক সভাপতি এম আজহারুল হক আরজু (আনারস) প্রতীকে ভোটের মাঠে রয়েছেন।
সম্পাদনা: আরএইচ/এনজেটি

আপনার মতামত দিন

error: Content is protected !!