• Ad 850
  • Ad 850
  • Ad 850
  • Ad 850

ফের আলোচনায় ফেনীর দুই অভিনেত্রী

নিজস্ব প্রতিনিধি
প্রকাশ : জানুয়ারি ৭, ২০১৯ | সময় : ৬:২৭ অপরাহ্ণ

বাংলাদেশের জাতীয় সংসদ ৩০০ সদস্য বিশিষ্ট সর্বোচ্চ আইন পরিষদ। প্রাপ্তবয়স্ক ভোটারের সরাসরি ভোটের ভিত্তিতে প্রতি আসন থেকে একজন করে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন।

নারীদের জন্য সংসদে সংরক্ষিত থাকে কিছু আসন। যারা ভোটে নির্বাচিত সংসদ সদস্যদের দ্বারা নির্বাচিত হন। ১৫ জন দিয়ে সংরক্ষিত এই আসনের যাত্রা হলেও বিভিন্ন সরকারের শাসনামলে এখানে এসেছে অনেক পরিবর্তন ও সংযোজন।

সর্বশেষ ২০১১ সালে সংবিধানের পঞ্চদশ সংশোধনী অনুযায়ী সংরক্ষিত নারী আসন সংখ্যা ৪৫ থেকে বাড়িয়ে ৫০ করা হয়েছে। এ সংখ্যা বহাল রেখেই গঠিত হচ্ছে নতুন সংসদের বিন্যাস।

এরই মধ্যে একাদশ সংসদ নির্বাচনে নির্বাচিত সদস্যরা শপথ গ্রহণ করেছেন। রাষ্ট্রপতি সংখ্যাগরিষ্ঠ দলের নেতা শেখ হাসিনাকে প্রধানমন্ত্রী নিয়োগ করে মন্ত্রিসভা গঠনের সম্মতি দিয়েছেন।

এবার সংসদের সংরক্ষিত আসনে নির্বাচনের প্রস্তুতি নিচ্ছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। সূত্রে জানা গেছে, আগামী ফেব্রুয়ারির মাঝামাঝি তফসিল দিয়ে মার্চের মধ্যেই ভোটগ্রহণ করা হবে। রাজনৈতিক দলগুলো বাছাই করে তাদের পছন্দের নারীদের মনোনয়ন দিতে পারবে। কোনো প্রতিদ্বন্দ্বী না থাকলে রিটার্নিং কর্মকর্তা মনোনয়নপ্রাপ্তদের বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত ঘোষণা করবেন।

এরই মধ্যে নতুন মেয়াদে সংরক্ষিত নারী আসনে এমপি হতে সরব হয়েছেন আওয়ামী লীগের নারী নেত্রীরা। রাজনীতিতে সক্রিয় বিভিন্ন পেশাজীবী নারীদের পাশাপাশি আলোচনায় আছেন শোবিজের তারকারাও। বিভিন্ন আড্ডা-বৈঠকে উঠে আসছে বেশকিছু নাম। উল্লেখ করা যায় অভিনেত্রী রোকেয়া প্রাচী, শমী কায়সার ও অপু বিশ্বাসের কথা।

তাদের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরেই রাজনীতিতে সক্রিয় রোকেয়া প্রাচী। নিয়মিতই তাকে রাজপথে পাওয়া যায় আওয়ামী লীগের কার্যক্রমে। তিনি বাংলাদেশ মহিলা আওয়ামী লীগের সংস্কৃতিবিষয়ক সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করছেন।

সেই সুবাদে ফেনী-৩ আসনে (দাগনভূঞা-সোনাগাজী) গত নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়নপ্রত্যাশীও ছিলেন এই অভিনেত্রী। তার আগে চালিয়েছিলেন প্রচারণা। শেষ পর্যন্ত টিকিট পাননি। তবে মনোনয়ন পাওয়া নেতার জন্য নৌকায় ভোট চেয়েছেন দলের নির্দেশ মেনে।

এবার তিনি আশা করছেন সংরক্ষিত আসনে দল থেকে মনোনয়ন পাবেন ও নির্বাচিত হবেন বলে। আজ (সোমবার) দুপুরে রোকেয়া প্রাচী বলেন, ‘অনেক দিন ধরেই আমি আওয়ামী লীগের কর্মী হিসেবে কাজ করে আসছি। বঙ্গবন্ধুর আদর্শ লালন করে বড় হয়েছি। নেত্রী শেখ হাসিনার সান্নিধ্য আমার রাজনৈতিক ও দেশপ্রেমের চেতনাকে উজ্জ্বল করেছে। সেই আদর্শ ও অভিজ্ঞতাকে মানুষের কাজে ব্যবহার করতে চাই।’

আমি আশাবাদী, আপা (প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা) আমাকে মূল্যায়ণ করবেন। দলের জন্য আমার শ্রম, ত্যাগ সম্পর্কে অবশ্যই তিনি অবগত।

আরেক অভিনেত্রী শহীদ বুদ্ধিজীবী শহীদুল্লাহ কায়সারের মেয়ে শমী কায়সার। তিনিও কয়েক বছর ধরে আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে সক্রিয়। একাদশ সংসদ নির্বাচনে তিনিও রোকেয়া প্রাচীর সঙ্গে নৌকার প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন চেয়েছিলেন ফেনী-৩ আসনে (দাগনভূঞা-সোনাগাজী)।

অনেক আলোচনায় থাকলেও শেষ পর্যন্ত বাদ পড়ে তার নাম। শোনা যাচ্ছে, সরাসরি নির্বাচনের টিকিট না পেলেও সংরক্ষিত নারী আসনের মনোনয়নে এগিয়ে আছেন এই অভিনেত্রী।

এছাড়া সংরক্ষিত নারী আসনের জন্য মনোনয়ন চাওয়ার তালিকায় দেখা যেতে পারে অভিনেত্রী কবরী সারোয়ার, অঞ্জনা, তারানা হালিম, তারিন, অপু বিশ্বাস, জোত্যিকা জোত্যি প্রমুখকে।

সম্পাদনা:আরএইচ/এইচআর

আপনার মতামত দিন

error: Content is protected !!